প্রথমেই বলে নেই, এই পোস্টে বর্ণিত কোন কাজের জন্য কোন প্রকার লিগাল লায়াবিলিটি আমি নিবো না, কোন ধরণের আর্থিক ক্ষয়ক্ষতির জন্যও আমি দায়ী থাকবো না। এখানে বর্ণিত যে কোন টিপস কাজে লাগাতে চাইলে অবশ্যই নিজ দায়িত্বে কাজ করবেন।

এবার আসি মূল পোস্টে। আমরা অনেকেই জানি যে ২০১৯ এর জুলাই থেকে বৈধপথে রেমিটেন্স আনার জন্য সরকার ২% হারে প্রবাসীদের জন্য প্রণোদনা দিচ্ছে। খুবই ভালো উদ্যোগ। আমি ব্যক্তিগতভাবে প্রথম কয়েকমাসের টাকা পাই নি, তবে পরবর্তীগুলো ঠিকমতই পেয়েছি।

প্রবাসী ছাড়াও বাংলাদেশে যারা আউটসোর্সিং বা রিমোট জব করে থাকেন তারাও নিয়মিত বৈদেশিক মুদ্রা রেমিটেন্স হিসেবে আনেন। কিন্তু বাংলাদেশ ব্যাংকের বর্তমান গ্যাজেট অনিবাসী প্রবাসী ব্যতীত অন্য কেউ এই সুবিধার আওতায় আসবে না। ফলাফল স্বরুপ পেওনীয়ারের মত কোম্পানীর মাধ্যমে যেসব ট্রানজেকশন হচ্ছে, অনেকেই সেটার বিপরীতে সরাসরি কোন ইন্সেন্টিভ পাচ্ছেন না!

আজকে আমি একটা ঘুরো পথ দেখাবো যেটার মাধ্যমে আপনি প্রবাসী না হয়েও ইন্সেনটিভ সব টাকা দেশে আনতে পারবেন পেওনীয়ার থেকে।

এজন্য আপনার মূলত দরকার হবে আপনার নামে একটা বিদেশী ব্যাংক একাউন্ট, সবচাইতে ভালো হয় US একাউন্ট হলে। (কেন US হলে ভালো হয়, সেটা পরে বলতেছি)। আগে একটা ফরেক্স সাইট থেকে US ব্যাংক একাউন্ট খোলা যেতো। সেটা এখনো আছে কিনা আমি শিওর না। আরও অন্য পথ থাকতে পারে। বর্তমানে আমার এই কাজের জন্য সবচেয়ে বেশি পছন্দ Transferwise Borderless Account, এটার মাধ্যমে ট্রান্সফারওয়াইজ থেকে আপনি একটা ভার্চুয়াল US ব্যাংক একাউন্ট পেতে পারেন।

ট্রান্সফারওয়াইজে একাউন্ট হয়ে গেলে ওরা আপনাকে একটা US একাউন্ট নাম্বার দিবে, ACH রাউটিং নাম্বার সহ। আপনি আস্তে করে এই ডিটেইলস টা নিয়ে আপনার পেওনীয়ার একাউন্টে এড করে দিন। পেওনীয়ার ২-৩ দিন টাইম নিবে, এপ্রুভ করার জন্য। এরপর ছোট একটা উইথড্র করে দেখুন সব ঠিক মত আছে কিনা। উইথড্র হতে ২-৩ দিন টাইম লাগতে পারে।

সব ঠিকটাক থাকলে এবার মেইন এমাউন্ট ট্রান্সফারওয়াইজে উইথড্র দিয়ে দিন। সেখানে ১-২ দিনে টাকা চলে আসবে। এবার সেখান থেকে আপনার দেশী একাউন্টে টাকা পাঠিয়ে দিতে পারবেন। সেক্ষেত্রে ১-২ দিনে আপনার টাকা চলে আসার কথা। আরও একদিন টাইম লাগতে পারে কাঙ্খিত প্রণোদনার টাকা একাউন্টে জমা হতে!

সেম ভাবে আপনি ট্রান্সফারওয়াইজের অন্য কারেন্সীগুলাও ব্যবহার করতে পারবেন। যেমন, EUR একাউন্ট ব্যবহার করে ইউরোপীয়ান ক্লায়েন্টের কাছ থেকে ডিরেক্ট পেমেন্ট নিতে পারবেন।

কিছু টিপসঃ

আসেন এবার একটু মলম বেচিঃ

যদি এখনো ট্রান্সফারওয়াইজের একাউন্ট না থাকে তাহলে https://transferwise.com/invite/i/mohammadb97 এই লিংক থেকে একাউন্ট খুলতে পারেন। আপনি আমি দুইজনেই কিছু বোনাস পাবো আরকি!

কমেন্টে আপনার এক্সপেরিয়েন্স জানাতে পারেন। আরও ভালো কোন ব্যবস্থা আপনার জানা থাকলে সেটাও জানাতে পারেন আমাদেরকে!

আপডেট

অনেকেই আমার সাথে যোগাযোগ করেছেন, রেসিডেন্স লোকেশন বাংলাদেশ দিলে ফুল ফিচার্ড একাউন্ট দিচ্ছে না ট্রান্সফারওয়াইজ। আমি খুবই দুঃখিত এই ব্যাপারে। আমি আসলে খেয়াল করতে পারি নাই জিনিসটা। যাইহোক, এখানে ট্রান্সফারওয়াইজটা মেইন জিনিস না। মেইন হলো, আপনার নিজের নামে অথবা অন্য কোন ব্যক্তির নামে একটা US একাউন্ট দরকার ACH রাউটিং সহ। সেটা আপনি ট্রান্সফারওয়াইজ ছাড়া ম্যানেজ করতে পারলেও কাজ হবে।




What's on your mind?


6 Comments

সাজ্জাদ commented 3 months ago

বাহ, ভাল তথ্য ! আমি জুমের জন্য প্রণোদনা পেয়েছি তবে শুধুমাত্র রুপালী ব্যাংকে । বেসরকারী ব্যাংক আমাকে বিশাল এক পেপার দেখিয়ে বুঝিয়ে দিল পাব না ! একটা বিষয় জানা দরকার transferwise-এ একাউন্ট করার সময় , Country of residence কি বাংলাদেশ নাকি ইউএস হবে?

Babar Al-Amin commented 3 months ago

এখানে মনে হয় রিয়েল ইনফো দেয়াই বেটার হবে। টাকা পয়সার ব্যাপার। আর ওরাও হয়তো একাউন্ট ভেরীফাই করতে চাইতে পারে। আমি আসলে শিওর না এই ব্যাপারে।

আলবেরুনী আজাদ commented 3 months ago

ভাই আমার পেওনিয়ার কার্ড দিয়ে, পেওনিয়ারে একটা US একাউন্ট করা আছে। সেটা দিয়ে কাজ হবে কি?

Babar Al-Amin commented 3 months ago

আমার জানামতে বাংলাদেশী ব্যাংকগুলো পেওনীয়ারের ট্রানজেকশনে আপাতত কোন প্রণোদনা দিচ্ছে না ভাইয়া।

shourav commented 3 months ago

they don't provide the USA bank details for Bangladeshi residence. i talked to them over phone few moments earlier.

Babar Al-Amin commented 3 months ago

জি ভাইয়া, ওইটা আমি পরে টের পেয়েছি আরকি! আমি আসলে জিনিসটা ধরতেই পারিনি যে, রেসিডেন্স চেঞ্জ হলে ফিচারও চেঞ্জ হয়ে যাবে! দুঃখজনক!